প্রেমের বিয়ের ৩ দিনের মাথায় নববধূর গলায় ফাঁস : কুষ্টিয়া 

0
0

প্রেমের বিয়ের ৩ দিনের মাথায় নববধূর গলায় ফাঁস : কুষ্টিয়া 

কুষ্টিয়ার খোকসায় মেহেদির রং শুকানোর আগেই বিয়ের মাত্র ৩ দিনের মাথায় পাপিয়া খাতুন নামে এক নববধূ আত্মহত্যা করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার হিলালপুর গ্রামে বাবার বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। ঘটনার পর থেকে নববধূর স্বামী শ্বশুরবাড়ির লোকজন আত্মগোপন রয়েছেন। নিহতের স্বজনদের দাবি, খোকসা সরকারি ডিগ্রী কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী পাপিয়া খাতুনের সঙ্গে একই কলেজের শামীম রেজার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ৩০শে সেপ্টেম্বর রাতে ছাত্রীর বাবার বাড়ি উপজেলার হিলালপুর গ্রামে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ে মেনে নিতে পারেনি বরের পরিবার। বৃহস্পতিবার বিকেলে নববধূকে তার বাবার বাড়িতে রেখে শামীম নিজের বাড়ি ফিরে যান। গভীর রাত পর্যন্ত স্বামী শামীম ফিরে না আসায় নিয়ে নবদম্পতির মধ্যে মোবাইল ফোনে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রাতেই নববধূ তার নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। শুক্রবার সকালে পরিবারের লোকজন পাপিয়ার কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে  তাকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখেন। পরে থানায় সংবাদ দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মরদেহটি উদ্ধার করে। নিহত নববধূর বাবা ওমর আলী জানান, পাপিয়াকে রেখে জামাই শামীম রেজা পালিয়ে তাহাদের বাড়ি চলে যায়। শামীম রেজার পরিবার এ বিয়ে মেনে না নেওয়ায় এবং শামীম রেজা পালিয়ে যাওয়ায় মেয়ে পাপিয়া  শামীম রেজার ও তাহার পরিবারের প্রতি অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে। এ ব্যাপারে শামীমের মুঠোফোনে বারবার কল দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি। তার বাবা আঃ রাজ্জাক বিশ্বাসের বাড়ি উপজেলার মির্জাপুরে গিয়েও সেখানে কাউকে পাওয়া যায়নি। এলাকাবাসী জানায়, পাপিয়ার আত্মহত্যার সংবাদ পেয়েই তারা সবাই আত্মগোপন করেছে। খোকসা থানা পুলিশের ডিউটি অফিসার এসআই বুলবুল আহমেদ বলেন, ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।

Please follow and like us:
0
0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

call now
Poor News
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial