চলে গেলেন বীরাঙ্গনা আফিয়া খাতুন খঞ্জনি : কুমিল্লা

0
0

মুক্তিযুদ্ধের সময় ক্যাম্পে  আটক থাকা অবস্থায় হানাদার বাহিনীর সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে এলাকার গরীব মানুষকে খাবার দিয়ে সংযোগিতা করতেন তিনি

বিজয়ের মাসে না ফেরার দেশে চলে গেলেন ১৯৭১ সালে পাকিস্তান বাহিনীর হাতে নির্যাতিত নিপীড়িত বীরাঙ্গনা আফিয়া খাতুন চৌধুরী খঞ্জনিসোমবার ২৩শে ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৯টায় কুমিল্লায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনিমৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮০ বছরবীরাঙ্গনা খঞ্জনির পরিবার সূত্রে জানা যায়, ১৯৩৯ সালে ফেনী জেলার বরইয়া চৌধুরী বাড়িতে জন্ম গ্রহণ করেন তিনি১৯৬৩ সালে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগন্নাথ দিঘি ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের রুহুল আমিন মানিক ওরফে হেকমত আলীর সাথে তার বিয়ে হয়১৯৬৬ সালে স্বামী হেকমত আলীর মৃত্যু হয়স্থানীয় মুক্তিযুদ্ধ গবেষকরা জানান, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে বীরাঙ্গনা খঞ্জনির স্বামীর বাড়ি সংলগ্ন জগন্নাথ দিঘির পাশে ছিল হানাদার বাহিনীর ক্যাম্পএই ক্যাম্পে সোনাপুরসহ আশে পাশের গ্রামের মেয়েদের ধরে এনে নির্যাতন করা হতোস্থানীয় রাজাকাররা খঞ্জনিকে হাবিলদার ক্যাম্পে ধরে নিয়ে যায়৮ই ডিসেম্বর কুমিল্লা মুক্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত বীরাঙ্গনা খঞ্জনি ক্যাম্পে আটক ছিলেনআটক থাকা অবস্থায় হানাদার বাহিনীর সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে এলাকার গরীব মানুষকে খাবার দিয়ে সংযোগিতা করতেন তিনিকিন্তু দেশ স্বাধীন হওয়ার পর খঞ্জনিকে স্বজনরা গ্রামে জায়গা দেননিএকপর্যায়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন তিনিসেই থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত খঞ্জনি মানসিক ভারসাম্যহীন কুমিল্লায় মেয়ের বাড়িতে ছিলেন২০১৫ সালে সংবাদ মাধ্যমে লেখালেখিতে সরকারের নজরে আসে তিনিএকই সাথে স্থানীয় প্রশাসন এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদও তার সাহায্যে এগিয়ে আসে২০১৮ সালে সরকার তাকে বীরাঙ্গনা উপাধিতে ভূষিত করেমঙ্গলবার সকালে নগরীর পূর্ব বাগিচাগাঁও জামে মসজিদে প্রথম জানাজা শেষে দাফনের জন্য চৌদ্দগ্রাম উপজেলার সোনাপুর গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়দুপুরে সেখানে দ্বিতীয় জানাজা শেষে দাফন করা হবেচৌদ্দগ্রাম উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা বলেন, “বীরাঙ্গনা আফিয়া খাতুন চৌধুরী খঞ্জনিকে দাফনের পূর্বে গার্ড অফ অনার প্রদান করা হবেরাষ্ট্রীয় মর্যাদার প্রদানের জন্য উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।”

Please follow and like us:
0
0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

call now
Poor News
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial